‍গণজাগরণের মাধ্যমেই ‘জাতীয় সরকার’ গঠন করতে হবে: আ স ম রব

স্টাফ করেসপনডেন্ট: স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলক, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, রাষ্ট্রের সকল অঙ্গকে যেভাবে অসাংবিধানিক ও অনৈতিক জালিয়াতি চক্রে আবদ্ধ করা হয়েছে, জাতিকে  নৈতিকভাবে দেউলিয়া করে ফেলা হয়েছে, যেভাবে নির্বাচনকে পাতানো খেলায় রূপান্তর করা হয়েছে, যেভাবে ধর্মীয় সহিংসতা উস্কে দেয়া হয়েছে, যেভাবে অনৈক্য সংঘাতকে প্রশ্রয় দেয়া হচ্ছে তাতে জাতিন রাষ্ট্র সুরক্ষার প্রশ্নে জাতীয়তাবাদের পুনরুজ্জীবন জরুরি।
জাতি আজ রাজনীতি,অর্থনীতি, জ্ঞান বিজ্ঞান, সাহিত্য সংস্কৃতির ক্ষেত্রে দেউলিয়াত্বের দ্বারপ্রান্তে।এ থেকে মুক্তি আবশ্যক।
টেবিলে বসে নয়, গণজাগরণের মাধ্যমে জাতীয় শক্তির পুনরুজ্জীবন করে ‘জাতীয় সরকার’ গঠন করতে হবে।
বিদ্যমান বাংলাদেশি রাজতন্ত্রের  হাত থেকে উত্তরণের একমাত্র পথ হচ্ছে গণজাগরণের মাধ্যমে জাতীয় শক্তির পুনরুজ্জীবন করা। এই পুনরুজ্জীবিত শক্তিই ‘জাতীয় সরকার’ গঠন করবে।এটা  হবে সকল সমাজশক্তির অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার। জাতীয় সরকার সংবিধানের চেতনাকে সমুন্নত করবে এবং সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও  সামাজিক সুবিচার ভিত্তিক মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় পরিচালিত হবে।
আ স ম রব বলেন, ৭১-এর স্বাধীনতা অর্জনের পর সশস্ত্র যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সকল শক্তি ও দলকে নিয়ে  ‘বিপ্লব জাতীয় সরকার’ গঠনের দাবি করেছিলাম। সেই দাবি প্রত্যাখ্যান করে দলীয় সরকার গঠন করায় জাতিকে অনেক খেসারত দিতে হয়েছে এবং বঙ্গবন্ধুকেও আমরা সুরক্ষা দিতে পারিনি।
জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি’র ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় সভাপতির প্রারম্ভিক ভাষণে আ স ম আবদুর রব উপরোক্ত বক্তব্য প্রদান করেন।
ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থা মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন বিএনপি মহাসচিব জননেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মাহমুদুর রহমান মান্না, ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ড. রেজা কিবরিয়া।
সভা পরিচালনা করেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী। শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসএমএস আনসার উদ্দিন।
সভায় জেএসডি সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার বলেন ৭২ সালের সংবিধানে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও সশস্ত্র যুদ্ধের চেতনার প্রতিফলন ঘটেনি। এক দলীয় বাকশাল গঠন করেও আওয়ামী লীগ গভীর সংকট উত্তরণ করতে পারেনি বরং সংকটকে আরো ঘনীভূত করেছে। সেই অপশাসনের ধারাবাহিকতায় রাজনীতি ও শাসন ব্যবস্থা এখন অকার্যকর হয়ে পড়েছে।
এই দুর্বৃত্ত বৈশিষ্ট্যপূর্ণ রাষ্ট্রীয় কাঠামো থেকে বেরিয়ে এসে শাসন ব্যবস্থায় শ্রমজীবী, কর্মজীবী ও পেশাজীবীদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করাই আজকের রাজনীতির প্রধান করণীয় যা বাঙালির তৃতীয় জাগরণকে গতিশীল করবে।
সভায় দলীয় নেতৃবৃন্দের মাঝে বক্তব্য রাখেন মোঃ সিরাজ মিয়া, জনাব শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, অ্যাড. কে এম জাবির, অ্যাড. সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলাল, জনাব মোশাররফ হোসেন, এস এম সামছুল আলম নিক্সন, তৌফিকুজ্জামান পীরাচা প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares