সোনারগাঁওয়ে রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

সোনারগাঁও প্রতিনিধি :

রাস্তা নির্মানকে কেন্দ্র করে সোনারগাঁও উপজেলা পিরোপুর ইউনিয়নের দুধঘাটা গ্রামে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহাত ও বাড়িঘর ভাংচুর করার ঘটনা ঘটেছে ।

আহতেদের মধ্যে পাচঁ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আর দুইজনকে ঢাকা-মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ শনিবার দুপুরে দুধঘাটা তিনরাস্তা মোড়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী এলাকাবাসীরা জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নয়াগাঁও এলাকা দিয়ে একটি সরকারী রাস্তা দুধঘাটা দিয়ে কোরবানপুর নদীর পাড় গিয়ে শেষ হয়। সম্প্রতি কোরবানপুর নদীর পাড়ে একটি বেসরকারী কোম্পানী ইউনিক গড়ে উঠে । ওই কোম্পানীর পরিবহন যাতায়াতের জন্য রাস্তাটি ২৪ ফুট প্রশস্থ করা হয়। ফলে রাস্তার দুপাশের মানুষের বাড়িঘর ভেঙ্গে সরিয়ে নিতে হয়।

কিন্তু দুধঘাটা এলাকায় মোস্তফা মিয়ার পরিবার রাস্তা প্রশস্থের জন্য তাদের নিজেদের জায়গা ছেড়ে দিতে নারাজ। আজ শনিবার দুপুরে পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমানে পিরোজপুর ইউনিয়ন জাতীয় পাটির আহবায়ক রাস্তা নির্মান করার জন্য জায়গাটি ছেড়ে দিতে অনুরোধ করেন ।

এ সময় মোস্তফা মিয়ার পরিবার জায়গা ছেড়ে দিতে না চাইলে দুপক্ষই কথাকাটাকাটি ও বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে মোস্তফা মিয়ার ছেলে রোমান মিয়া ও তাজুল মিয়ার ছেলে আব্দুল্লাহকে ৫/৭ জনের একটি দল ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারিভাবে কুপিয়ে আহত করে । পরে লোকজন একত্রিত হয়ে মোস্তফা মিয়ার বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। এসময় সিরাজুল হক ভুইয়ার ছেলে সুমন মিয়া এগিয়ে আসলে তাকেও পিটিয়ে আহত করে প্রতিপক্ষরা। এ সময় হামলাকারীরা গ্রুপের লোকজনের প্রায় ১০/১২টি বাড়িঘর ভাঙচুর এবং লুটপাট চালায় বলে দাবী ক্ষতিগ্রস্তদের।

এ বিষয়ে পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমানে পিরোজপুর ইউনিয়ন জাতীয় পাটির আহবায়ক সিরাজুল হক ভূইয়া বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমাকে হত্যার জন্য মোস্তফা মিয়ার ছেলে রোমান মিয়া ও তাজুল মিয়ার লোকজন আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। হামলায় আমাদের তিনজন আহত হয়েছে।

পাল্টা অভিযোগ করে মোস্তফা মিয়ার ও তাজুল মিয়া বলেন, সিরাজুল হক ভূইয়া সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। পরে সিরাজুল হক ভুইয়ার লোকজন একত্রিত হয়ে আমাদের ১০/১২টি বাড়িঘর ভাঙচুর এবং লুটপাট চালায়। এর আগেও তারা আমার বাড়ীঘরে হামলা চালিয়েছে আমরা সিরাজুল হকের বিচার চাই।

সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান জানান, দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। উভয় পক্ষে অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares