রাজাপুরে ক্যান্সারে আক্রান্ত স্ত্রীকে বাচাঁতে কিডনী বিক্রি করতে চায় স্বামী

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠির রাজাপুরের ধানসিঁড়ি নদীতীরবর্তি গুচ্ছগ্রামের দিনমজুর জাকির সরদারের স্ত্রী তিন সন্তানের জননী তাছলিমা বেগম (৩৫) ব্রেষ্ট ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে অর্থাভাবে চিকিৎসা না করাতে পেরে আশ্রায়নের ঘরের বিছানায় যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছেন। স্ত্রীকে বাচাঁতে কিডনী বিক্রি করতে চায় স্বামী। তার চিকিৎসার জন্য দেশের সম্পদশালী মানুষের কাছে আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন অসহায় এ পরিবার।

ক্যান্সারে আক্রান্ত তাছলিমা বেগম বলেন, শরীরে জ্বালা যন্ত্রনায় ঘুমাতেও পারি না, তারমধ্যে শিশু সন্তানরা খাবারের জন্য কান্না করে। অর্থাভাবে চিকিৎসা আর খাবার জোগার হচ্ছে না।

রাজের জোগালিয়া জাকির সরদার বলেন, গত জানুয়ারী মাসে তার স্ত্রী তাছলিমা স্তনে তীব্র যন্ত্রনায় আক্রান্ত হলে তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তার মোঃ মহসীন হাওলাদারকে দেখান। সেখানে বিভিন্নরকম টেষ্ট করানোর পরে তার স্তন ক্যান্সার ধরা পরে। কিছুদিন পরে অপারেশন করে একটি স্তন কেটে ফেলে দেয়া হয় এবং তাকে ক্যামো থেরাপি দেয়ার জন্য পরামর্শ দেন ওই ডাক্তার। এ পর্যন্ত অর্থাভাবে তাছলিমাকে কোন থেরাপি দেওয়াতে পারেনি জাকির। এ বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন স্ত্রীকে চিকিৎসা করাতে গিয়ে নিস্ব হয়ে পরা জাকির।

তিনি আরো বলেন, গত ছয় মাসে তাছলিমার চিকিৎসায় প্রায় আড়াইলক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। তার মধ্যে প্রায় একলক্ষাধিক টাকা ঋণ হয়েছেন। বর্তমানে থেরাপিসহ অন্যান্য ঔষধ নিয়ে আরো তিন লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন বলে ওই ডাক্তার জানিয়েছেন। এমনকি টাকার অভাবে ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডাক্তারও দেখাতে পারেনি। এখন স্ত্রীকে বাচাঁতে কিডনী বিক্রি করতে চায় চাই। এছাড়া আমার আর কোন পথ নেই।

এ অবস্থায় তার বড় ছেলে মাদ্রাসা থেকে দাখিল পরীক্ষার্থী, মেজ ছেলে তাওহিদ ও ছোট মেয়ে চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। জাকিরের বৃদ্ধ বাবা ইউনুচ সরদার ও বৃদ্ধা মা রহিমা বেগমকে নিয়ে পরিবারে ৭ জন সদস্য। তাদের আশ্রায়নে একখানা ঘর ছাড়া অন্য কোন জমাজমি নাই। এমনকি উপার্জনের অন্য কোন উৎসা নাই।

স্ত্রীর সেবাযত্ন আর সংসারের কাজ করতে করতে দিনমজুরের কাজও করা আর সম্ভব হচ্ছে না তার। এখন চিকিৎসা খরচ চালানো তো দূরের কথা শিশু সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দিতে পারছেন না তিনি। জাকির রাজের জোগালিয়া দিয়ে যা উপার্জন করেন তা দিয়ে সন্তানদের লেখাপড়ার খরচসহ সংসার চালাতে না পেরে চোখে মুখে অন্ধকার দেখছেন।

এখন তাছলিমার চিকিৎসা মানুষের সাহায্য ছাড়া সম্ভব নয় বলে জাকির আরো জানান। দেশের কোন স্বহৃদয়বান ব্যক্তিদের সাহায্য কামনা করেছেন তিনি। যোগাযোগ ও সাহায্যোর জন্য জাকিরের এ ০১৭৫৮০৫৬০৮৬ (বিকাশ) কল করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares
Verified by MonsterInsights