মান্দায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১১ সদস্যের অনাস্থা

আপেল মাহমুদ, রাজশাহী:

নওগাঁর মান্দা উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছেন একই পরিষদের ১১ জন সদস্য।

সদস্যদের সম্মানীভাতা প্রদান না করাসহ বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ এনে গতকাল বুধবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অনাস্থা প্রস্তাবটি দাখিল করা হয়েছে। অভিযোগের অনুলিপি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে পাঠিয়েছেন অভিযোগকারীরা।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ৩৮ মাস ধরে সদস্যদের সম্মানীভাতা আটকে রাখা, হোল্ডিং ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স, হাট, খেয়াঘাট ও খোয়াড় ইজারা, ইটভাটাসহ বিভিন্ন খাতের আদায়কৃত টাকা পরিষদের হিসাব খাতায় কোন উল্লেখ নেই।

পরিষদ সদস্যদের সঙ্গে সমন্বয় না করেই এলজিএসপি, কাবিখা, কাবিটা, এডিবিসহ সরকারি বরাদ্দকৃত অর্থ নিজের ইচ্ছেমত খরচ ও আত্মসাত করেন।

এছাড়া টিআর ও কাবিখা প্রকল্পের কাজসহ বয়স্ক, প্রতিবন্ধী, বিধবাভাতাসহ বিভিন্ন ভাতা প্রদানে অনিয়ম করেছেন চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম।

এমনকি ইউনিয়ন পরিষদের অনুকুলে বরাদ্দকৃত ১% টাকার কোন কাজ না করেই আত্মসাত করেন তিনি। ১০ কেজির চালের কার্ড প্রকৃত দরিদ্রদের মাঝে বরাদ্দ না দিয়ে চেয়ারম্যানের নিজস্ব লোক ও বিত্তশালীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে।

তবে, এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম।

তিনি বলেন, অভিযোগগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্রমুলক। ইউনিয়ন পরিষদের নিয়ম অনুযায়ী সকল কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে। কাল্পনিক তথ্য উপস্থাপন করে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে এসব অভিযোগ করা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল হালিম বলেন, এসব বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares