মান্দায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মারা যাওয়ার পর পদ নিয়ে ফেসবুকে ঝড়

 

আপেল মাহমুদ, রাজশাহী: নওগাঁ  মান্দা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক স ম জসিম উদ্দিন করোনা পজেটিভ হয়ে মারা গেছেন ৬ জুলাই গত সোমবার । আর মারা যাওয়ার পরই দলীয় ভাবে তার মৃত্যুর জন্য তিন দিনের শোক ঘোষণা করা হয় এবং সেই শোক পালনের তিনদিন যেতে না যেতেই নেতাদের পক্ষ থেকে শুরু হয়েছে আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস।

পাঠকদের জন্য স্ট্যাটাস ও কিছু কমেন্ট তুলে ধরা হলো:

সবুজ শাহ নামক আইডি থেকে স্ট্যাটাস দেওয়া হয়, মান্দা উপজেলার যুবলীগের সাবেক সভাপতি এ্যাডভোকেট নাহিদ মোর্শেদ বাবু ভাই কে মান্দা উপজেলা আওয়ামী-লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব দিন।

ইমন নামে আকের আইডি সবুজ শাহ এর স্ট্যাটাসে কমেন্ট করে , ভাই রে আর কয়টা দিন দাম।

ইঞ্জিনিয়ার রুহুল আমিন রাসেল নামের আইডি থেকে ঐ স্টাটাসে কমেন্ট করে বলেন, জসিম সাহেবের মরার অপেক্ষায় ছিলে নাকি? মারা গেছেন শোকের সময়। পদ নিয়ে টানাটানির সময় এখনো আসেনি। তাছাড়া যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদাধিকার বলে ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক হয় এটা আগে জানতে হবে। আর কিছু সময় পরে এমন পোস্ট মানায় ৪৮ঘন্টা আগে যেতে দাও।

সাবিহা প্রমানিক আইডি থেকে ঐ একই স্ট্যাটাসে কমেন্ট করেন, এখন কি এইধরনের পোস্ট দেয়ার সময়!! ছাগল।

এমডি সেলিম নামের আইডি থেকে কমেন্ট করেন, সরাসরি ভারপ্রাপ্ত এমপি করলে কেমন হয়? মাথা ঠান্ডা করেন তিন দিনের শোক চলছে! তাছাড়া দলের যুগ্ম সম্পাদক জীবিত আছেন।

উপজেলার সচেতন ব্যক্তিরা বলছেন , মৃত্যুর পর পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এধরনের প্রচার ঠিক নয়। সমর্থন থাকতেই পারে তাই বলে ঠিক এই মুহূর্তে এধরনের দাবি যৌক্তিক বলে মনে হয়না।

উল্লেখ্য, মারা যাওয়ার সময় উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার জসিম উদ্দিন চার মেয়ে, তিন ছেলে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

সরদার জসিম প্রায় চার দশক ধরে মান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেন।

নিহতের পারিবারিক ও মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার থেকে জ্বর-সর্দি ও শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। গত শনিবার নিজ বাড়ি থেকে করোনা পরীক্ষার জন্য তাঁর নমুনা সংগ্রহ করেন স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীরা। তাঁর শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় রোববার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাঁকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল ৮টায় তাঁর মৃত্যু হয়। মঙ্গলবার করোনা পরীক্ষার রেজাল্ট আসলে জানা যায় তিনি করোনা পজেটিভ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares