বঙ্গবন্ধুর খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ (অব.) কে গ্রেপ্তারে ভোলা কলঙ্ক মুক্ত হলো: এমপি মুকুল

ভোল জেলা প্রতিনিধিঃ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যামামলার ফাসির দন্ড প্রাপ্ত পালাতক আসামি ক্যাপ্টেন( অঃ) আবদুল মাজেদ গ্রেপ্তার হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ভেলা-২ আসনের সাংসদ আলি আজম মুকুল এমপি। দ্রূত রায় কার্যকরের দাবি জানান তিনি। এমপি মুকুল বলেন আত্ব-স্বীকৃত খুনি দির্ঘ দিন বিভিন্ন দেশে আত্বগোপনে ছিলো। ঘৃনিত খুনির ব্যাপারে ইন্টারপোলে রেড এলাট জারি করা হয়েছে অনেক আগে। বাংলাদেশ পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট সোমবার দিবাগত রাত অনুমানিক ৩ টার দিকে মিরপুর সাড়ে ১১ থেকে গ্রেপ্তার করে মাজেদকে ।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২ টার দিকে ফৌজদারি কার্যবিধি ৫৪ ধারায় তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি)। এসময় বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় গ্রেফতার না দেখানো পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করে কাউন্টার টেরোরিজম। আবেদনে বলা হয়, আসামি ক্যাপ্টেন (অব.) আবদুল মাজেদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। সে দীর্ঘদিন পলাতক ছিল। এই মামলায় তাকে গ্রেফতার না দেখানো পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করছি। আদালত শুনানি শেষে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

গ্রেফতারের পর মাজেদ জানান,তিনি ২৪-২৫ বছর ধরে ভারতের কলকাতায় অবস্থান করছিলেন। সেখান থেকে তিনি নিজেই বাংলাদেশে এসেছেন।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সকল কে ধন্যবাদ জানান এমপি মুকুল। ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার বড়মানিকা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডে খুনি মাজেদের গ্রামের বাড়ি, কিন্তু কখনও তিনি এ এলাকায় আসেননি।

এলাকার কেউ তাকে চিনেও না। পরিবারের অন্য সদস্যরা কখনও এলাকায় আসেনি। ৭৫ এর ১৫ আগষ্ট বিপদ গামি কিছু সেনা সদস্যর হাতে নির্মম ভাবে হত্যাকান্ডের শিকার হন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ পরিবারের সদস্যরা। ভাগ্য ক্রমে বিদেশে অবস্থান করায় বেঁচে জান গনপ্রজাতন্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেএী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। ৯৬ সালে আওয়ামিলীগ নেতৃত্বাধীন সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিচার কাজ শুরু হয়।

২০০১ সালে বিএনপি জোট ক্ষমতায় আসলে বন্ধ থাকে বিচার কার্যক্রম, পড়ে মোহাজোট ক্ষমতায় আসলে তা আবার শুরু হয়। খুনি মাজেদ গ্রেপ্তারে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ভোলা জেলার সকল শ্রেনী পেশার মানুষ। সাংসদ আলি আজম মুকুল বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে হোমকোয়ারেন্টানের নির্দেশনা মেনে মানুষ ঘড় থেকে বের হচ্ছেনা। অন্যথায় ভোলা সহ আমার নির্বাচনি এলাকার মানুষ রাস্তায় নেমে খুনি মাজেদের প্রেপ্তারে উল্লাস প্রকাশ করতো। সমগ্র জাতি আজ এ দুর্যোগের সময় ও আনন্দিত ঘৃনিত খুনির গ্রেপ্তারে। এর ফলে ভোলা আজ কলঙ্ক মুক্ত হল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares