পাটগ্রামে কিশোরের বিরুদ্ধে ২য় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ 

লালমনিরহাট প্রতিনিধি : লালমনিরহাটের পাটগ্রামে ২য় শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের(৭) অভিযোগ উঠেছে  ফরিদুল ইসলাম নামের এক কিশোরের বিরুদ্ধে ।  ঘটনায় ওই এলাকা জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার (৮ই সেপ্টেম্বর)সকাল ১০ টার সময় পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রামের মহিমপাড়া এলাকায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় ওই শিশুর বাবা বাদী হয়ে পাটগ্রাম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত কিশোর ফরিদুল পলাতক রয়েছেন।
ধর্ষক ওই কিশোর উপজেলার দহগ্রাম ইউনিয়নের মহিমা পাড়া এলাকার আমজাদ আলীর ছেলে। ভূক্তভোগী কিশোরী সম্পর্কে তার চাচাত বোন।

পাটগ্রাম থানার ওসি (তদন্ত)আব্দুল মোত্তালিব সরকার ও এজাহার থেকে জানা যায়,ভুক্তভোগীর বাড়ির সঙ্গে অভিযুক্ত ফরিদুলের বাড়ি একই গ্রামে। সেই সুবাদে তাদের বাড়িতে অবাধে  আসা-যাওয়া করতো ফরিদুল। এমতবস্থায় গত ৮ই সেপ্টেম্বর সকালে চকলেট কিনে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে পাশের একটি হলুদ ক্ষেতে নিয়ে যান সে। এ সময় মেয়েটির হাত মুখ চেপে ধরে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে কিশোর ফরিদুল । এতে মেয়েটি শারীরিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করে। চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত কিশোর ফরিদুল। পরে মেয়েটিকে উদ্ধার করে প্রথমে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।
অভিযোগ উঠেছে, ধর্ষনের ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে দহগ্রাম ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুর আলম ইসলাম মরিয়া হয়ে উঠেছে। শুধু তাই নয় ঘটনাটি কাউকে না জানাতে গতকাল রাতে কিশোরের বাবা ও তার দলবল ভুক্তভোগীর বাড়িতে এসে মারধরের হুমকি দেয়। এমতাবস্থায় পারিবারিক ভাবে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানান ভুক্তভোগীর পরিবার। তবে আওয়ামী লীগ নেতা নুর আলম সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মেয়েটির বাবা দিন মজুরের কাজ করে আমার বাড়িতে। আমি তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করে আসছি।
এ বিষয়ে শিশুটির বাবা বলেন, আমার সাত বছর বয়সী ছোট মেয়েকে ধর্ষণ করেছে ফরিদুল। আমাদের কে বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দেওয়া হচ্ছে। আমি এই ধর্ষনের ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।
পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওমর ফারুক অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,এ ধর্ষণের ঘটনায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares