পাইকগাছায় আলোচিত পকেটমারির ঘটনায় ইসমাইল নামে চক্রের সদস্য গ্রেপ্তার

মোঃ মনিরুল ইসলাম,পাইকগাছা(খুলনা) প্রতিনিধি: খুলনার পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি বদ্ধভূমিতে (স্মৃতি সৌধ) সরকারের সংস্কৃতিক প্রতিমন্ত্রীর কে এম খালিদ, স্থানীয় সংসদ সদস্য আক্তারুজ্জামান বাবুসহ প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ম্যারাথন পকেটমারীর ঘটনায় চক্রের আরোও এক  সদসয়কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (০৮আগস্ট) সকালে রূপসা থানা পুলিশের সহায়তায় পাইকগাছা থানা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হয়। গ্রেপ্তারকৃত পকেটমার ইসমাইল সরদার (৫৬) পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার ধাওয়া গ্রামের চান্দুয়া সরদারের পুত্র। থানা পুলিশ জানায়, ম্যারাথন
পকেটমারীর ঘটনার খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে খুলনার রুপসা এলাকাবাসী ছবিতে রুপসার নৈহাটি গ্রামের মৃত জজ আলীর ছেলে ইসহাক সরদারকে শনাক্ত করে।

এরপর তারা তাকে ধরে রুপসা থানা পুলিশে সোর্পদ করে। এরপর রুপসা থানা পুলিশ
পাইকগাছা থানা পুলিশকে খবর দিলে থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাকে সেখান থেকে নিজ
হেফাজতে নেয়। সর্বশেষ তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক সোমবার সকালে ইসমাইল সরদারকে রূপসা বাসস্টান্ড সংলগ্ন বড়বাড়ি খাল পাড়ের একটি ভাড়া বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক
জিজ্ঞাসাবাদে সে ইসাক শেখের সাথে ম্যাথন পকেট কাটার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দিয়েছে বলেও
জানিয়েছে পুলিশ।এর আগে উক্ত ঘটনায় পকেটমারির শিকার কপিলমুনির সাংবাদিক তপন পাল বাদী হয়ে পাইকগাছা থানায় একটি নিয়মিত মামলা করেছেন। উল্লেখ্য, গত ২ আগস্ট বিশ্ববরেণ্য বিজ্ঞানী আচার্য্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায় পিসিরায়ের ১৬১ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তার গ্রামের বাড়ি
রাড়ুলীতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথিমধ্যে কপিলমুনি স্মৃতিসৌধ পরিদর্শনে যান সরকারের সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্জ্ব আক্তারুজ্জামান বাবুসহ সরকার দলীয় স্থানীয় নেতৃবৃন্দ
ও প্রশাসনের কর্তা-ব্যাক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় অতিরিক্ত ভীঁড়ের চাপে অসাবধানতায়
ম্যারাথন স্টাইলে ভিআইপিদের পকেটমারির ঘটনা ঘটে। যার একটি ঘটনা সংবাদকর্মীদের ধারণকৃত ক্যামেরায় ধরা পড়লে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ভাইরাল হয়।
একপর্যায়ে পুলিশ চক্রের সদস্যদের শনাক্ত ও আটক করতে মরিয়া হয়ে উঠে। এর পর বৃহস্পতিবার জনতার সহায়তায় পুলিশ ইসহাক নামের এক জনকে আটক করতে সমর্থ হয়। সর্বশেষ তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক রূপসা এলাকা থেকে সোমবার সকালে ইসমাইল সরদার নামে চক্রের আরও এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়াউর রহমান জানান, চক্রের অন্যতম সদস্য ইসহাকে শনাক্ত ও আটকের পর তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক সোমবার সকালে ইসমাইল নামের আরোও এক পকেটমারকে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে রূপসা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। দুপুরেই তাকে উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। পকেটমারির ঘটনায় চক্রের বাকিদেরকেও গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares