পবিত্র ঈদুল আজহা কাল

  • অনলাইন ডেস্ক : সারাদেশে আগামীকাল বৃহস্পতিবার ঈদুল আজহা উদযাপন করবে মুসলিম সম্প্রদায়। এ দিন আত্মত্যাগ ও আত্মশুদ্ধির মাধ্যমে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় সামর্থ্য অনুয়ায়ী পশু কোরবানি করবেন তারা। ঈদের নামাজ শেষে মুসল্লিদের অনেকেই যাবেন কবরস্থানে। সেখানে তারা স্বজনদের কবরের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে আল্লাহর দরবারে আকুতি জানাবেন।

     

    ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীসহ বিশ্বের মুসলমানদের আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়ে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

    রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, মহান আল্লাহর প্রতি গভীর আনুগত্য ও সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আজহা। ‘আজহা’ অর্থ- কোরবানি বা উৎসর্গ করা। ঈদুল আজহা উৎসবের সঙ্গে মিশে আছে চরম ত্যাগ ও প্রভুপ্রেমের পরাকাষ্ঠা। মহান আল্লাহর নির্দেশে স্বীয় পুত্র হজরত ইসমাইলকে (আ) কোরবানি করতে উদ্যত হয়ে হজরত ইবরাহিম (আ) আল্লাহর প্রতি অগাধ ভালোবাসা, অবিচল আনুগত্য ও অসীম আত্মত্যাগের যে সুমহান দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন, তা ইতিহাসে অতুলনীয়।

    রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, কোরবানি আমাদের মাঝে আত্মদান ও আত্মত্যাগের মানসিকতা সঞ্চারিত করে, আত্মীয়স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশীর সঙ্গে সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে নেওয়ার মনোভাব ও সহিষ্ণুতার শিক্ষা দেয়।

     

    প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে বলেন, আমি প্রত্যাশা করি- প্রতিবারের মতো এবারও ঈদ ধনী-গরিব নির্বিশেষে সকলের জীবনে সুখ ও আনন্দের বার্তা বয়ে আনবে। শেখ হাসিনা আরও বলেন, হজরত ইবরাহিম (আ) মহান আল্লাহর উদ্দেশে প্রিয় বস্তুকে উৎসর্গের মাধ্যমে তার সন্তুষ্টি লাভে যে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন, তা বিশ্ববাসীর কাছে চিরকাল অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় হয়ে থাকবে।

    এবার হাইকোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৭টায়। ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে ঈদ জামাত হবে সকাল ৯টায়। এবারও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে এক ঘণ্টার বিরতিতে ঈদের ৫টি জামাত হবে। প্রথম জামাত হবে সকাল ৭টায়।

    এদিকে ঈদ উপলক্ষে দেশের সব বিভাগ, জেলা, উপজেলা, সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ এবং সরকারি সংস্থাসমূহ নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এ ছাড়া বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারসহ বেসরকারি গণমাধ্যম বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করবে। সংবাদপত্রে থাকছে বিশেষ সংখ্যা। ঈদ উপলক্ষে দেশের সব হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, বৃদ্ধনিবাস ও মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিশনসমূহে যথাযথভাবে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন করা হবে। সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি রক্ষার্থে নেওয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

    কোরবানির পশুর বর্জ্যে যেন পরিবেশ দূষণ না ঘটে, সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনসহ স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান। ঈদুল আজহার পূর্ববর্তী জুমার খুতবায় এ বিষয়ে মুসল্লিদের সচেতন করা হয়েছে।

     

    বিশ্বব্যাপী মুসলিম সম্প্রদায় জিলহজ মাসের ১০ তারিখে ঈদুল আজহা উদযাপন করে। আর্থিকভাবে সামর্থ্যবান মুসলিমের জন্য কোরবানি ফরজ করা হয়েছে। জিলহজ মাসের ১০ তারিখে ঈদুল আজহা উদযাপন হলেও পরের দুই দিনও পশু কোরবানি করার বিধান রয়েছে। সামর্থ্যবান মুসলমানদের জন্য কোরবানি ফরজ হলেও ঈদের আনন্দ থেকে দরিদ্র-দুস্থরাও বঞ্চিত হবেন না। কোরবানির পশুর চামড়া বিক্রির সমুদয় অর্থ এবং কোরবানি দেওয়া পশুর মাংসের তিন ভাগের এক ভাগ তাদের মধ্যে বণ্টন হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares
Verified by MonsterInsights