তেঁতুলিয়ায় বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চা আবাদি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা

পঞ্চগড় প্রতিনিধি: ‘উত্তরবঙ্গে চা চাষে এগিয়ে আসুন,জাতীয় অর্থনীতিকে অবদান রাখুন’এই প্রতিপাদ্য বিষয়ে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার চাষীদের হাতে কলমে ‘বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চা আবাদি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে উপজেলার আজিজনগর বিসমিল্লাহ ট্রি ফ্যাক্টোরিতে খোলা মাঠে এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ চা বোর্ড দেশে দক্ষ চা চাষী তৈরির জন্য অভিন্ন এক উদ্যোগ নিয়েছে। তারা বলছে, এই উদ্যেগের ফলে চাষীরা বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চা আবাদী ব্যবস্থাপনা ও টেকসই-নিরাপদ চা উৎপাদন সম্পর্কে জানতে পারবে।

‘ক্যামেলিয়া খোলা আকাশ স্কুল’ উদ্যোগে চা চাষীদের দোরগোড়ায় বিভিন্ন ধরনের সেবা পৌঁছে দিতে এই কার্যক্রম, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দীর্ঘ মেয়াদে চলমান থাকবে বলে জানা গেছে।

চা বোর্ড জানায়, এই কার্যক্রমের ফলে চা চাষীরা কাঁচা পাতার ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি, প্রয়োজনীয় কীটনাশক ব্যবহার, কম খরচে উৎপাদন ও গুণগতমান বৃদ্ধি করতে সক্ষম হবে।

এই উদ্যেগের আওতায় পঞ্চগড়ে ৪৫ টি কর্মশালায় ৫০-৬০ জন নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত ক্ষুদ্র চা চাষীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে চা বোর্ড।

ক্যামেলিয়া খোলা আকাশ স্কুল’ সম্পর্কে জানা গেছে, এটি গতানুগতিক কোন স্কুল নয়, এটি চা বাগানের পাশে খোলা ময়দানে আকশের নিচে ক্ষুদ্র চা চাষীদের নিয়ে আয়োজিত একটি ছাদ ও দেয়াল বিহীন স্কুল।

এ স্কুলে চায়ের জাত নির্বাচন, নার্সারী তৈরি, চারা রোপন, পাতা চয়ন, প্রুনিং, সেচ ও পানি নিষ্কাশন, সার প্রয়োগ ও পোকামাকড়-রোগবালাই দমন ইত্যাদি সম্পর্কে ক্ষুদ্র চাষীদের হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।

এদিকে স্কুলের নামকরণ সম্পর্কে জানা গেছে-চায়ের উদ্ভিদতাত্ত্বিক বা বৈজ্ঞানিক নাম হলো ‘ক্যামেলিয়া সাইনেনসিস’। সেই নাম থেকে জেনাস অংশটুকু নিয়ে ‘ক্যামেলিয়া’ এবং দেয়াল ও ছাদ বিহীন স্কুলের নামে ‘খোলা আকাশ স্কুল’ নামকরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares