টিপ ইস্যু: ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার

অনলাইন ডেস্ক: সিলেটে লিয়াকত আলী নামে এক পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তাকে পুলিশ লাইনসে প্রত্যাহার করা হয়। তিনি সিলেট জেলার কোর্ট পরিদর্শক। সমালোচনার মুখে ওই পুলিশ কর্মকর্তার স্ট্যাটাসটি ডিলিটও করেছেন।
জানা গেছে, টিপ পরায় ঢাকার এক কলেজ শিক্ষিকাকে হেনস্তা করার প্রতিবাদে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অনেক পুরুষ নিজেদের কপালে টিপ পরে প্রতীকী প্রতিবাদ জানান। এটিকে কটাক্ষ করে সোমবার ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন লিয়াকত আলী। পুলিশ কর্মকর্তার পোস্টটিকে ‘আপত্তিকর’ উল্লেখ করে ফেসবুকে সমালোচনা শুরু হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে রাতেই তাঁকে প্রত্যাহার করা হয়।
সোমবার রাতে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে লিয়াকত আলী বলেন, ‘সম্পূর্ণ পজিটিভ দৃষ্টিভঙ্গি থেকে এ স্ট্যাটাসটি দিয়েছিলাম।’
তিনি আরো বলেন, ‘টিপ মেয়েরা পড়ে। আমার স্ত্রীও টিপ পড়েন। পুরুষরা নারীর লেবাস পড়ে প্রতিবাদ জানানোর কারণেই আমি ফেসবুক স্ট্যাটাসটি দিয়েছিলাম। পোস্ট ভাইরাল করা আমার মূল মোটিভ ছিল না। আমি নারী বিদ্বেষী কর্মকর্তাও নই। তবে পোস্ট নিয়ে বিভিন্নজনের সমালোচনার কারণে সেটি ডিলিট করেছি।’
সিলেট জেলা পুলিশের মুখপাত্র (মিডিয়া) ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. লুৎফুর রহমান জানান, কোর্ট পুলিশ পরিদর্শকের ফেইসবুক স্ট্যাটাসের বিষয়ে তারা অবগত হয়েছেন।
ওই কর্মকর্তা এরই মধ্যে স্ট্যাটাসটি মুছে ফেলেছেন জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘পুলিশ সদস্যদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের ক্ষেত্রে পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশনা রয়েছে। পুলিশ সুপার মহোদয় জৈন্তাপুরে ব্যস্ত ছিলেন। তিনি বিষয়টি অবহিত হয়ে কোর্ট পরিদর্শক মো. লিয়াকত আলীকে ক্লোজড করার নির্দেশ দিয়েছেন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares