কলাপাড়ায় ভূমির মালিক দাবী করে জেলা পরিষদ সদস্যের সংবাদ সম্মেলন

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ভূমির মালিক দাবী করে জেলা পরিষদের সদস্য মো.আসলাম হাওলাদার সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন।

সোমবার সকালে কলাপাড়া রিপোর্টার্স ক্লাবের হল রুমে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত
বক্তব্য পাঠকরে তিনি বলেন, আমি ও মো.রুবেল সিকদার, ফোরকান মৃধা, মো.ফয়সাল মেলকার সহ আরো দুইজন ছোট বালিয়াতলীর মৌজার জে,এল নং ২৯ হাল বি, এস ৪৪ নং খতিয়ানের রেকর্ডীয় মালিক।

আইয়ে (আইসো) মগনীর লোকান্তরে ওয়ারিস সূত্রে পর্যায়ক্রমে গত ৩০ জুলাই ২০২০ তারিখে দলিল নং ২৬৯৯/২০২০ (১) সাইমা চিং, পিতা মৃত চিং থোয়াইউ (২) জলিক্রু মার্মানী জুলিথু, পিতা অংথিন মার্মা (৩) মেরাসাই (ম্ব্ররাইসা) মগনী মার্মা (৪) উচেন চিং মার্মা, পিতা
মৃত মংবু মার্মা (৫) মংছেন মার্মা, পিতা মংবু মার্মা (৬) এছেন মার্মা,
পিতা মংবু মার্মা (৭) বোছেন এ মার্মা পিতা মংবু মার্মা (৮) অংছেন মার্মা পিতা মংবু মার্মা (৯) পিয়ানু মার্মা পিতা মংবুসে মার্মা (১০) ঞোঞোসাই মার্মা পিতা মংবুসে মার্মা (১১) চম্পা রাখাইন পিতা মংইন মার্মা (১২) কলিধর পিতা মংইন মার্মা এদেও নিকট থেকে জেনারেল পাওয়ার অফ এ্যার্টনী
গ্রহন করে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে দিলে তিনি ইউনিয়নের ভূমি সহকারী
কর্মকর্তা, নয়াকাটা তাহার প্রতিবেদন হাল দাখিলা বি, এস রেকর্ড ওয়ারিশ সার্টিফিকেট, এন আই ডি কার্ড সহ সকল কাগজপত্র যাচাই করে সঠিক ভাবে উক্ত জমি বিক্রির অনুমতি প্রদান করেন।

যাহার স্মারক নং ০৫.১০.৭৮৬৬.১০২.০১.০৩১.২০-৬৮০, তারিখ ২০ জুলাই ২০২০ মিস কেস নং-০৮/২০২০
জমির পরিমান ১১.৮১ একর জমির পরিচয় জে,এল নং ১৯, বি, এস, খতিয়ান নং-৪৪,
যাহার রেকর্ডিয় মালিক আইয়ে (আইসো) মগনী, বি, এস ২৫১০/২৫৭৭/২৫৭৮ নং দাগ
সমূহ হইতে ১১.৮১ একর ভূমি বিক্রয়ের অনুমতির আদেশ বলে বিভিন্ন মেয়াদে জাকিয়া গংয়ের নামে সাব কবলা দলিল সৃষ্টি হয়।

গত ২৭ জুন ২০১৯ তারিখে
খেপুপাড়া এস, আর অফিসে রেজিস্ট্রিকৃত বায়না ২৬৯৭/১৯ আসলাম হাওলাদারের
গংদের নামে বায়না দলিল হয়।

জমি বিক্রয়ের অনুমতি বি,এস রেকর্ড, ওয়ারিশ সার্টিফিকেট হাল দাখিলা সহ ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা (তদন্ত) এর
মাধ্যমে দাতাগনের সমস্ত কাগজপত্র দেখিয়া বাজার মূল্য যাচাই করে ৪৪নং খতিয়ানের জমি বিক্রি করি।

মো. আবু সাইদ হাওলাদার ভূয়া কাগজপত্র জাল-জালিয়াতি ভাবে তৈরি করিয়া যেখানে যায় সেখানেই তার এক চাচাতো ভাই এনামুল হক নামের এক উপ সচিবের নাম ভাঙ্গিয়া সংখ্যালঘু রাখাইন সম্প্রদায়ের জমি জবর দখলের চেষ্টা করছে।

লিখিত বক্তব্য তিনি আরো দাবী করে বলেন, আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্নিত হয়ে আবু সাইদ হাওলাদার আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য সাংবাদিক ভাইয়েদের কাছে ভুল তথ্য দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে। উক্ত
সংবাদ সম্মেলনের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares