#করোনা_ভাইরাস/#সিজনাল_ফ্লু/#কমন_কোল্ড

#করোনা_ভাইরাস/#সিজনাল_ফ্লু/#কমন_কোল্ড

 

 

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহিঃবিভাগ ও জরুরী বিভাগে হঠাৎ করেই “ফ্লু লাইক সিম্পটমস” নিয়ে আসা রোগীর সংখ্যা খুব বেড়ে গেছে।এটা নিয়ে আমরা অনেকেই শঙ্কিত হয়ে পড়ছি যে এটা আসলে করোনা ভাইরাস নাকি সিজনাল ফ্লু নাকি কমন কোল্ড!?!এগুলো পার্থক্য করা একটু কষ্ট হলেও খুব জটিল নয়।আসুন দুশ্চিন্তা না করে এদের উপসর্গ সহ যাবতীয় তথ্য জেনে নিই।

 

#করোনা_ভাইরাস

উপসর্গঃ
১)জ্বর
২)শুকনো কাশি
৩)পেশিতে ব্যথা
৪)ক্লান্তি
৫)মাথা যন্ত্রণা
৬)র‍্যাশ
৭)শ্বাসকষ্ট
৮)ডায়রিয়া কখনো কখনো

 

ইনকিউবেশন পিরিয়ড(শরীরে ভাইরাস ঢোকা থেকে প্রথম উপসর্গ দেখা দেওয়া পর্যন্ত সময়):  ১-১৪ দিন,কোনো কোনো ক্ষেত্রে ২৪ দিনও হতে পারে।

জটিলতাঃ
করোনার আক্রান্তদের মধ্যে ৫ শতাংশের অবস্থা জটিল হতে পারে।যেমন-
১)অ্যাকিউট নিউমোনিয়া
২)সেপটিক শক
৩)রেসপিরেটরি ফেইলর
৪)মাল্টি অরগ্যান ফেইলর

সুস্থ হওয়ার সময়ঃ
সাধারণত ২ সপ্তাহের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেন আক্রান্ত ব্যক্তিরা।তবে জটিল ক্ষেত্রে ২-৬ সপ্তাহ সময় লাগতে পারে।

চিকিৎসা ও প্রতিষেধকঃ
চিকিৎসা উপসর্গ অনুযায়ী ডাক্তারের পরামর্শে।প্রতিষেধক আমাদের দেশে এখনো নেই।

 

#সিজনাল_ফ্লু

উপসর্গঃ
১)জ্বর
২)কাশি
৩)খুব বেশি ক্লান্তি
৪)সারা গায়ে ব্যথা
৬)মাথা যন্ত্রণা
৬)নাক দিয়ে জল পড়া ও বদ্ধ নাক
৭)কখনো ডায়রিয়া ও বমিও হতে পারে

ইনকিউবেশন পিরিয়ড: ১-৪দিন

জটিলতাঃ ১০০ জনে ১ জনের অবস্থা জটিল হতে পারে।

সুস্থ হওয়ার সময়ঃ
সাধারনত সুস্থ হতে ১ সপ্তাহ সময় লাগে,তবে জটিল ক্ষেত্রে ২ সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগতেও পারে।

চিকিৎসা ও প্রতিষেধকঃ
চিকিৎসা উপসর্গ অনুযায়ী ডাক্তারের পরামর্শে।বার্ষিক ফ্লু প্রতিষেধক রয়েছে।

#কমন_কোল্ড

 

উপসর্গঃ
১)নাক দিয়ে জল পড়া বা বদ্ধ নাক
২)হাঁচি
৩)গলা ব্যথা
৪)কাশি
৫)মাথা যন্ত্রণা

ইনকিউবেশন পিরিয়ডঃ ২-৩ দিন

জটিলতাঃ খুবই বিরল ঘটনা

সুস্থ হওয়ার সময়ঃ
অধিকাংশ ক্ষেত্রে ১ সপ্তাহ লাগে,বড়জোর ১০ দিন লাগতে পারে।

চিকিৎসা ও প্রতিষেধকঃ
উপসর্গ অনুযায়ী ডাক্তারের পরামর্শে।প্রতিষেধক সেভাবে নেই।

#বিশ্লেষনঃ

কমন কোল্ড বা সাধারণ হাঁচি-কাশিতে জ্বর থাকে না,থাকলেও সেটা নেগলিজেবল।অবশ্যই সর্দি ও গলা ব্যথা থাকবে।কাশি খুব বেশি থাকবে।মাথার যন্ত্রণা থাকবে না অথবা থাকলেও খুব কম।

সিজনাল ফ্লুতে ক্লান্তিভাব সবচেয়ে বেশি থাকে।সারা গায়ে ব্যথা থাকে।অবশ্যই জ্বর থাকবে কিন্তু সর্দি থাকবে না,সর্দি থাকলেও সেটা নেগলিজেবল।শ্বাসকষ্ট থাকবে না।

করোনাতে শুকনো কাশি থাকবে কিন্তু সিজনাল ফ্লু এর মতো এতো বেশি কাশি থাকবে না।সারা গায়ে ব্যথা থাকতে পারে তবে তুলনামুলক ফ্লু থেকে কম।অবশ্যই জ্বর থাকবে।গলা ব্যথা থাকতে পারে তবে কমন কোল্ড এর মতো এতো বেশি থাকবে না।র‍্যাশ থাকে,শ্বাসকষ্ট থাকে।

খুব কি তালগোল পেকে যাচ্ছে?!?এর চেয়ে সহজ করে বলা সম্ভব নয়।😢

আপনারা বর্তমান সময়ের এই “ফ্লু লাইক সিম্পটমস” গুলো নিয়ে ভীত না হয়ে বরং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।ডাক্তারের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখে বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নেওয়া সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ।প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শে হাসপাতালে ভর্তি হয়েও চিকিৎসা নিতে পারেন।

#সচেতন_হোন
#সুস্থ_থাকুন

 

 

#ডা_নিলয়_কুমার_প্রামানিক
#আবাসিক_মেডিকেল_অফিসার
#উপজেলা_স্বাস্থ্য_কমপ্লেক্স
#মান্দা_নওগাঁ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares