করোনায় দুস্থদের পাশে শাবানা

বিনোদন  ডেস্ক

দিন কয়েক আগেই লকডাউনে সমস্যায় পড়া দুস্থদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। দেশের এই সংকটকালীন পরিস্থিতিতে ১৭২টি জেলার প্রায় ১০ লাখেরও বেশি মানুষের মুখে অন্ন তুলে দিতে অ্যাকশন এইড ইন্ডিয়ার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে ময়দানে নেমে পড়েছিলেন বলিউডের এই প্রবীণ অভিনেত্রী তথা সমাজকর্মী শাবানা আজমি।

এবার জনসমক্ষে করোনা বিধ্বস্ত বিশ্বের প্রেক্ষাপট তুলে ধরতে ডাক পেলেন ইটালির খ্যাতনামা লেখক এরি ডে লুকার কাছ থেকে। ইতালির এই জনপ্রিয় লেখক দ্য ডেকামেরন ২০২০ নামে এক প্রজেক্ট শুরু করেছেন।

যেখানে তার বেছে নেওয়া সারা বিশ্বের তাবৎ তাবৎ লেখক-লেখিকারা বর্তমান প্রেক্ষাপটে মানব সভ্যতার নানামুখী সংকট তুলে ধরবেন। প্রত্যেকেই ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র এই নরখেকো ভাইরাসের সৃষ্টি করা পরিস্থিতি নিয়ে একটি করে ১০০০ শব্দের গল্প লিখতে হবে। আন্তর্জাতিক পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক মাইকেল মায়ের বিশেষভাবে শামিল হয়েছেন এরি ডে লুকার এই প্রজেক্টে। তিনি নিজের মতো করে যথাসাধ্য সাহায্য করছেন এরি এবং তার ম্যানেজারকে।

আর সেই সুন্দর গল্পগুলোর নাট্যরূপান্তরের দায়িত্বে রয়েছেন পাওলো বিসন। লুকার এই উদ্যোগেই শামিল হয়েছেন শাবানা আজমি। শাবানা প্রফেসর তাবিশ খায়েরের গল্প ‘রিভার অফ নো রিটার্ন’-এর জন্য রেকর্ড করলেন। এ প্রসঙ্গে শাবানার মন্তব্য, ‘তাবিশ খায়ের যখন এই প্রকল্পের জন্য আমাকে প্রস্তাব দেন, আমি একবাক্যে রাজি হয়ে গিয়েছিলাম।

কারণ, ওর রিভার অফ নো রিটার্নের গল্পটি আমার হৃদয় ছুঁয়ে গিয়েছে। পাসোলিনীর ‘ডেকামেরন’ সিনেমাটি সম্পর্কে অবশ্য আমি অবগত ছিলামই। তবে, এরি ডে লুকার ‘ডেকামেরন ২০২০’র মতো আন্তর্জাতিক মানের প্রকল্পে শামিল হতে পেরে আমি সত্যিই আনন্দিত।

বর্তমান এই পরিস্থিতিকে আমি মানব সভ্যতার ক্রাইসিস বলব।’ মারণ ভাইরাস কোভিড-১৯ মোকাবিলায় যখন গোটা দেশে জারি রয়েছে লকডাউন, তখন অসহায়, রোজগারহীন মানুষগুলোর দিকেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেছিলেন বলিউডের প্রবীণ অভিনেত্রী শাবানা আজমি। যে কোনো ইস্যু নিয়ে তিনি অবশ্য সবসময়েই সরব হন। এবার লুকার প্রজেক্টে শামিল হলেন বিশ্বজুড়ে এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির বর্ণনা দিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares