কক্সবাজারে মানুষের পাশে থেকে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন এমপি কমল

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

অসময়ে গরীবের বন্ধু তা আবারও প্রমাণ করে দিলেন আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি। কক্সবাজার-রামু-৩ আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল নিজের সর্বাত্মক দিয়ে সাধারণ মানুষের পাশে থেকে সাহায্য -সহযোগিতা করে যাচ্ছে। তার এই  কর্মকাণ্ড দেখে স্থানিয় ও বিশেষজ্ঞরা বলছেন এমপি কমল অন্যদের মত আরাম আয়েশে গাঁ না ভাসিয়ে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে যাচ্ছেন।গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে করোনাভাইরাস দেখা দেওয়ার পূর্ব থেকে বাংলাদেশ সরকার যেমন গোটা দেশে করোনাভাইরাস বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছিলেন। তারেই ধারাবাহিতায় কক্সবাজার -৩ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল  এলাকার জন্য কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করেছিলেন। দেশের অধিকাংশ সাংসদ ও অনেক নেতার মত বিলাসিতা জীবনযাপন না করে রামু-কক্সবাজারের প্রান্তিক এলাকা ঘুরে ঘুরে মানুষকে সচেতন ও সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

প্রতিটি ইউনিয়ন, গ্রাম ও ঘরে ঘরে গিয়ে করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি করেছেন। যেসব এলাকায় যাওয়া সম্ভব হয়নি সেসব এলাকায় টিম ভিত্তিক ওয়ার্কিং প্লান মোতাবেক করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করেন।

এছাড়া জনপ্রতিনিধি,স্থানিয় সচেতনমহল, আ.লীগ ও অঙ্গ সংগঠন এবং সহযোগী সংগঠনসহ কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও নিজেদের আত্বীয় স্বজন এবং স্ব উপজেলা প্রসাশন, সশস্ত্র বাহিনী, পুলিশ প্রশাসনদের সাথে নিয়ে দিনরাত কাজ করছেন। তার কর্মসূচিতে ছিল, জনসচেতনতা সৃষ্টির লিফটলেট, মাক্স, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবানসহ নিজস্ব তহবিল থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। এছাড়া পাড়ায় পাড়ায় মাইকিং ও মসজিদে ইমামদের মাধ্যমে পরিষ্কার পরিচ্ছনতা, সামাজিক দূরত্ব নিশচ্ছিত, গনজমায়েত পরিহার ইত্যাদি বিষয়ের উপর প্রথম দিকে আলোচনা এবং পরবর্তী মসজিদে নামাযে জামাত অল্প সংখ্যক মুসল্লি নামাজ পড়া এমনকি জুমার নামাজ আদায়ে সরকার যে সিদ্ধান্ত নেন তা বাস্থবায়ন করেন। করোনার জন্য মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়লে তাদের সরকারী ত্রাণের পাশাপাশি নিজস্ব তহবিল থেকে নিম্ন ও মধ্যবিত্তদের জন্য নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি পৌঁছে দিচ্ছেন।
 

সাংসদ আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এর একটি কথা আপনারা ঘরে থাকুন বাকি দায়িত্ব আমাদের। উপরে আল্লাহ সহায় থাকলে, দেশের পরিস্থিতি যতদিন স্থিতিশীল হবেনা ততদিন কারো ঘরে খাদ্যের সংকট হবেনা। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে সকল কার্যক্রম ও সরকারি ত্রাণ সঠিক বন্টন এবং নিজস্ব অর্থায়নে চাল থেকে শুরু করে বিভিন্ন নিত্যপণ্য উপহার সামগ্রী দিয়ে যাচ্ছেন।

এই সংকটময় পরিস্থিতির মধ্যে এমপি কমল কোন মতেই নিজেকে চার দেওয়ালের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে অভ্যস্ত নয়। হরহামেশেই খোঁজখবর নিচ্ছেন এলাকাবাসীর। পাঠাচ্ছেন বিভিন্ন সহযোগীতা।সাংসদ আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন,প্রধানমন্ত্রীর সাথে গলা মিলিয়ে বলেন, ইনশাআল্লাহ্‌ আধার একদিন কেটে যাবে।

আল্লাহর উপর ভরসা রেখে প্রধানমন্ত্রীর সকল সাহসী পদক্ষেপ আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করেছে। সরকারের বরাদ্দ সঠিক জায়গায় বন্টন করে   নয় ছয় করার সুযোগ দিই নাই। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত দেখে সরকারি ও নিজস্ব তহবিল থেকে ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন,এখন প্রতিহিংসার রাজনীতি পরিহার করে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাওয়ার সময়। রামু-কক্সবাজারের জনসাধারণ দেখিয়েছেন তাদের ভালবাসা। তাদের মূল্যবান ভোটে আমি সাংসদ নির্বাচিত হয়েছি।এই ঈর্ষা সহ্য করতে না পেরে কতিপয় অপরাজনীতি ধারক বাহক তারা মাঝে মধ্যে অপপ্রচার চালাই। এতে আমার কিছু যায় আসেনা। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাবো ইনশাআল্লাহ্‌।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares