অনুমতি নেই! পুলিশ প্যাণ্ডেল খুলে দিলেও সাড়ম্বরে ভারতমাতার পুঁজো বাগবাজারে

শুভজিৎদত্তগুপ্ত ,কলকাতা ব্যুরো:

কলকাতা পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাগবাজার ঘাট লাগোয়া রবীন্দ্র সরণিতে শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয়েছিল ম্যারাপ বাধার কাজ।

রাত ১০টা নাগাদ শ্যামপুকুর থানার পুলিশ রবীন্দ্র সরণির ওপর ডেকরেটার কর্মী এনে পুরো প্যাণ্ডেল খুলে দেয় । বিজেপির নেতা কর্মীরা বারংবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও ১৫ অগাস্ট পতাকা উত্তোলনের পর ভারতমাতার মূর্তি পুজোর অনুমতি দিতে চায়নি প্রশাসন। কিন্তু অবশেষে স্থানীয় অধিবাসীদের সহযোগীতায় ১৫ই অগাস্ট সাড়ম্বরে আয়োজিত হলো ভারতমাতার পুজো কোভিড-১৯ প্রোটোকল মেনেই।

পুজোর উদ্যোক্তাদের তরফ থেকে ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার রাজ্য সহসভাপতি কৌশিক ঘোষ নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন ” উত্তর কলকাতায় ২১ জুলাই যতগুলো ভার্চুয়াল সভামঞ্চ হয়েছিল কোনটার অনুমতি ছিল! বিজেপি কিছু করলেই আইন, কানুন আর শাসক দলে সব ছাড়।”

পুজোর অন্যতম উদ্যোক্তা বিজেপির শ্যামপুকুর উত্তর মন্ডলের সভাপতি ঈশ্বরদয়াল সাউ বলেন “প্যাণ্ডেল পুলিশ খুলে দিলেও বিজেপি কর্মীরা ও এককাট্টা ছিল তাদের ঘোষিত কর্মসূচি সমাপ্ত করতে,পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলো ওয়ার্ডের বাসিন্দারা তাই অনেক জটিলতা সত্ত্বেও পুজো অনুষ্ঠিত হয়েছে সুষ্ঠ ভাবেই। “পুজো সংগঠনের সাথে সক্রিয় রাজ্য বিজেপির নেতা ও বিশিষ্ট আইনজীবী ব্রজেশ ঝা বলেন ” কোভিড-১৯ প্রোটোকল মেনে অনুষ্ঠিত হওয়া এই পুজো বন্ধ করতে রাজ্য প্রশাসন যে অতি সক্রিয়তা দেখিয়েছে তা অনভিপ্রেত।

“অঞ্চলের অধিবাসীদের সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে উদযাপিত এই পুজোতে রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়,উত্তর কলকাতার জেলা সভাপতি শিবাজী সিংহরায় ,প্ৰাক্তন ডেপুটি মেয়র মীনাদেবী পুরোহিত ,অভিনেতা ও বিজেপির কালচারাল সেল এর কনভেনর সুমন ব্যানার্জী প্রমুখ বিশিষ্ট অতিথি বর্গ উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠান টি সঞ্চালনা করেন বিজেপির উত্তর কোলকাতার সম্পাদক প্রণব পোদ্দার ও শ্যামপুকুর উত্তর মন্ডলের সম্পাদক সুজিত চ্যাটার্জী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares